মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:২৪ অপরাহ্ন

শ্রীলঙ্কাকে ২৫ কোটি ডলার ঋণ দিলো বাংলাদেশ

বাংলার সংবাদ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২২ আগস্ট, ২০২১
  • ২০৩ বার দেখা হয়েছে

স্বাধীনতার পর প্রথম দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ থেকে শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দিয়েছে বাংলাদেশ। এই প্রথম বিদেশে ঋণ দেওয়ার ইতিহাসে নাম লেখালো বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কাকে ২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই ঋণ দেওয়ার মধ্য দিয়ে বহিঃবিশ্বে দেশের সুনাম বাড়ার পাশাপাশি রেটিংও বেড়ে যাবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

সূত্রে জানা যায়, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেশে ব্যাপক অর্থনৈতিক উন্নয়ন হয়েছে। এছাড়া রফতানি ও প্রবাসীদের আয় বেড়েছে কয়েকগুণ। এর ফলে বাংলাদেশ ব্যাংকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ দাঁড়িয়েছে ৪৫ বিলিয়ন ডলারেও বেশি। আর ৪৫ বিলিয়ন ডলার থেকে শ্রীলঙ্কাকে ২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে। তবে ৫ কিস্তিতে এই অর্থ ছাড় হবে। প্রথম দেওয়া হয়েছে ৫ বিলিয়ন ডলার (বাংলাদেশের টাকায় ৪২৫ কোটি টাকা।
গত বৃহস্পতিবার এর প্রথম কিস্তি ছাড় হয়েছে।

অর্থনীতিবীদরা বলেন, এই ঋণ দেওয়াটা আসলে সত্যিই গর্বেব বিষয়। আগের আমরা ঋণ আনতাম। আর এখন আমরা দিচ্ছি। আমাদের অর্থনীতি অনেক দেশের চেয়ে ভালো। আমরা রফতানি এবং রেমিটেন্সে আয়ে অনেক দেশের তুলনায় এগিয়ে রয়েছি। গত এক দশকে দেশ অনেক এগিয়েছে। বর্তমান সরকার একটানা ক্ষমতায় থাকায় দেশের অর্থনীতি আগের তুলনায় অনেকটাই এগিয়ে গেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, গত মে মাসে শ্রীলঙ্কার আবেদনের পরিপেক্ষিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সভায় ঋণ দেওয়ার নীতিগত সিন্ধান্ত নেন। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বাংলাদেশে শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী ও শ্রীলঙ্কার গভর্নর বাংলাদেশ আসে। তখন শ্রীলঙ্কার গভর্নর প্রধানমন্ত্রীর কাছে ঋণের আবেদন করেন।

এরপরে চুক্তিনামা তৈরি করে এই ঋণ দেওয়া হয়। চুক্তিনামা অনুযায়ী এই ঋণের জন্য ত্রৈমাসিক ভিক্তিতে লাইবরের (লন্ডন আন্তঃব্যাংক সুদের হার) সঙ্গে অতিরিক্তি ২ শতাংশ সুদ যুক্ত করে বাংলাদেশ ব্যাংককে শ্রীলঙ্কার কেন্দ্রীয় ব্যাংক পরিশোধ করবে। এছাড়া তিন মাসের বেশি সময়ের জন্য আরো দিতে হবে লাইবরের সঙ্গে অতিরিক্তি আড়াই শতাংশ সুদ। লাইবর হলো যুক্তরাজ্যের লন্ডন ইন্টার ব্যাংক অফার রেট। বর্তমানে লাইবর রেট ২ শতাংশের কম।

জানা যায়, আন্তর্জাতিক মানদন্ড অনুযায়ী একটি দেশের কাছে সর্বনিম্ন তিন মাসের আমদানি ব্যয় মেটানোর জন্য সমপরিমাণ বিদেশি মুদ্রার মজুদ থাকতে হয়। সেটি বর্তমানে শ্রীলঙ্কার এই মুহূর্তে নেই। তাই শ্রীলঙ্কাকে ২৫ কোটি ডলার ঋণ দেওয়ার সিন্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের দিক থেকে বাংলাদেশ দ্বিতীয় এবং ভারত প্রথম। ভারতের রিজার্ভের পরিমাণ ৫৩৬ বিলিয়ন ডলার। আর বাংলাদেশের ৪৫ বিলিয়ন ডলারে বেশি ছিল। যা দিয়ে ৯ মাসের বেশি আমদানি ব্যয় মিটানো সম্ভব। এছাড়া পাকিস্তান রিজার্ভের পরিমাণ ১৬ বিলিয়ন ডলার এবং নেপালের ১১ বিলিয়ন ডলার।

২০১৮ সালে শ্রীলঙ্কার রিজার্ভের পরিমাণ ছিল সর্বোচ্চ যা ৯ বিলিয়ন ডলার। বর্তমানে অর্ধেকে নেমে গেছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ-সংকটে ভুগছে শ্রীলঙ্কা। বর্তমানে তাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ রয়েছে মাত্র ৫০০ কোটি ডলার।

এ ব্যাপারে সাবেক গভর্নর ড. সালেহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, বাংলাদেশে অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো। ঋণ দেওয়ার মত রিজার্ভ বাংলাদেশে রয়েছে। এটা পাশ^বর্তী দেশে হিসেসে ঋণ দেওয়া যেতে পারে। এতে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ¦ল হয়েছে। বর্তমানে শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো না। তাই বিপদের সময় পাশে দাঁড়ানোটা উচিত। আর বাংলাদেশ সেটাই করেছে।

ঋণের টাকা পাবে পরে পাবে কী না চানতে চাইলে বলেন, এখানে ভয়ের কিছুই না। সব রাষ্ট্রই ঋণ দিয়ে থাকে। তবে আগে আমাদের আর্থিক ভালো ছিলো না। এখন আমাদের দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা অনেক দেশের চেয়ে ভালো। সামনে আমাদের দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো হবে। কারণ দেশের পদ্মা সেতু ও মেট্রোরেল চালু হয়ে গেলেই অর্থনৈতিক অবস্থা আরো ভালো হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম বলেন, শ্রীলঙ্কার আবেদনের পরিপেক্ষিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ প্রথম দফায় ২৫ কোটি ডলার ঋণের ছাড় দেওয়া হয়েছে। বাকি ঋণ ধাপে ধাপে দেওয়া হবে। তবে তাদের চাহিদা অনুযায়ী আমরা ঋণ দেওয়ার চেষ্টা করবো।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102