বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:৫০ পূর্বাহ্ন

ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৫৫ সদস্যপদে ৩৪১ ও সংরক্ষিত সদস্যপদে ১২৯ জন

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৬৮ বার দেখা হয়েছে

আসাদুল ইসলাম সবুজ, লালমনিরহাট ॥ বাঙালি উৎসব প্রিয় জাতি। যেকোনো একটা উপলক্ষ্য পেলেই মেতে ওঠে আলোচনা-সমালোচনা ও আনন্দ-উল্লাসে। আর সেটা নির্বাচন হলে তো কথাই নেই। আগামী ২৮ নভেম্বর তৃতীয় পর্বে সারাদেশের ন্যায় লালমনিরহাট সদর উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান, সদস্য, সদস্যা পদের প্রার্থীরা পাড়া-মহল্লার নির্বাচনী প্রচারণা বেশ জোরেশোরে চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে ভোটাররা করছেন অন্য হিসাব নিকাশ। তারা হিসেব কষছেন, অতীত ও ভবিষ্যৎ নিয়ে। অতীতে কে কি করেছেন এবং ভবিষ্যতে কার দ্বারা কি উন্নয়ন হবে এসব হিসেব কষতেও ভুল করছেন না সাধারন ভোটাররা। অনেকে সুষ্ঠু পরিবেশে নির্বাচন হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন। তবে ভোটাররা স্বচ্ছ, সৎ, নির্ভীক, নিষ্ঠাবান ও জবাবদিতিতা মুলক যোগ্য চেয়ারম্যান প্রার্থীকে ভোট দেবেন।
নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, লালমনিরহাট সদর উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৫৫জন চেয়ারম্যান, ৩৪১ জন সদস্য, ১২৯ জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে মহেন্দ্রনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৯ জন চেয়ারম্যান, ৪৫ জন সদস্য, ১৫ জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মহেন্দ্রনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের খলিলুর রহমান (নৌকা), জাতীয় পার্টি আসাদুল আশেকীন রতন (লাঙ্গল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ফয়জার রহমান (হাতপাখা), স্বতন্ত্র আঃ মজিদ (আনারস), তাজবিরুল ইসলাম সুমন (অটোরিক্সা), মশিউর রহমান বসুনীয়া (ঘোড়া), মহিউদ্দিন আহম্মেদ (ঢোল), রশিদুল হক (মোটর সাইকেল), রুহুল আমিন বসুনিয়া (চশমা) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ২৮ হাজার ২শত ২৭জন।
মোগলহাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৬ জন চেয়ারম্যান, ৪১ জন সদস্য, ১৪ জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মোগলহাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হাবিবুর রহমান (নৌকা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নুরুল ইসলাম (হাতপাখা), জাকের পার্টির হানিফ আলী (গোলাপফুল), স্বতন্ত্র আতোয়ার হোসেন (মোটর সাইকেল), গোলাম ফারুক (আনারস), শেখ মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ (ঘোড়া) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ২৭ হাজার ১শত ৮৮জন।
কুলাঘাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪জন চেয়ারম্যান, ৩৭ জন সদস্য, ১৬ জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। কুলাঘাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শাহজাহান আলী সরকার (নৌকা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের খালিদ সাইফুল্যাহ (হাতপাখা), জাকের পার্টির শহিদুল ইসলাম (গোলাপফুল), স্বতন্ত্র ইদ্রিস আলী (আনারস) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ২২ হাজার ৮শত ২৫জন।
হারাটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৭ জন চেয়ারম্যান, ৪০ জন সদস্য, ১৬ জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। হারাটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সিরাজুল হক খন্দকার (নৌকা), জাতীয় পার্টির রফিকুল ইসলাম (লাঙ্গল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আব্দুল হাই (হাতপাখা), স্বতন্ত্র আব্দুল হাকিম খান (ঘোড়া), মজিবর রহমান (মোটর সাইকেল), মোশারফ হোসেন (আনারস), হোসেন আলী (চশমা) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ২৪ হাজার ৭শত ১৫জন।
খুনিয়াগাছ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৭ জন চেয়ারম্যান, ৩৩ জন সদস্য, ১২জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। খুনিয়াগাছ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মোজাম্মেল হক সরকার মানিক (নৌকা), জাতীয় পার্টির জুলফিকার আলী (লাঙ্গল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমজাদ হোসেন (হাতপাখা), স্বতন্ত্র আবুজার রহমান (চশমা), আঃ মালেক সরকার (মোটর সাইকেল), আমিনুল ইসলাম (আনারস), এ এস এম খায়রুজ্জামান মন্ডল (ঘোড়া) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ২২ হাজার ৭শত ২৫জন।
রাজপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪ জন চেয়ারম্যান, ২৪ জন সদস্য, ১৪ জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। রাজপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মোফাজ্জল হোসেন (নৌকা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সোলায়মান গনি (হাতপাখা), স্বতন্ত্র বিশ্বজিত মোহন্ত (আনারস), শাহাজাহান আলী (মোটর সাইকেল) বরাদ্দকৃত প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ১৫ হাজার ৪শত ৪৩জন।
গোকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৫ জন চেয়ারম্যান, ৪৬ জন সদস্য, ১৭ জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। গোকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গোলাম মোস্তফা স্বপন (নৌকা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আবু বকর সিদ্দীা (হাতপাখা), স্বতন্ত্র আনিছার রহমান (মোটর সাইকেল), আঃ রশিদ সরকার টোটন (আনারস), আঃ রহিম (খোকন) (ঘোড়া) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ৩১ হাজার ১৪ জন।
পঞ্চগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৬ জন চেয়ারম্যান, ৩৫ জন সদস্য, ১৩ জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পঞ্চগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গোলাম ফারুক বসুনিয়া (নৌকা), জাতীয় পার্টির নুর উদ্দিন (লাঙ্গল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের জাহেদুল ইসলাম (হাতপাখা), স্বতন্ত্র আলা উদ্দিন আহমেদ (মোটর সাইকেল), বিভূতি ভুষন রায় বসুনিয়া (ঘোড়া), দেলওয়ার হোসেন (আনারস) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ২৪ হাজার ৩শত ২১ জন।
বড়বাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৭ জন চেয়ারম্যান, ৪০ জন সদস্য, ১২ জন সদস্যা পদের প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বড়বাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের এসএম আশরাফুল হক মিঠু (নৌকা), জাতীয় পার্টির আব্দুর রহমান (লাঙ্গল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের একরামুল হক (হাতপাখা), স্বতন্ত্র এবিএম আজিজুর রহমান খন্দকার (মোটর সাইকেল), পনির উদ্দিন (চশমা), সফিকুল ইসলাম (আনারস), হাবিবুর রহমান হবি (ঘোড়া) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ২১ হাজার ৯ শত ৯১ জন।
৯টি ইউনিয়নের সাধারণ ভোটাররা বলছেন, আমরা চাই নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হোক। যাতে সবাই নির্বিঘেœ তাঁদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন। এবং তাঁদের পছন্দের প্রার্থী বেছে নিতে পারেন। অবশ্যই তাকে সৎ, নির্ভীক ও নিষ্ঠাবান হতে হবে। তাঁর কাছে আমরা আশা করব তিনি যেন নির্বাচিত হয়ে ইউপির উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102