শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:১৯ অপরাহ্ন

লালমনিরহাটে ম্যাংগো জুস খেয়ে ৫ শিশু অসুস্থ্য

আসাদুল ইসলাম সবুজ ॥
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১৪৯ বার দেখা হয়েছে
লালমনিরহাটে প্রাণ-ফ্রুটো (ম্যাংগো জুস) খেয়ে ৫ শিশু অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। ছবি : নতুন বাংলার সংবাদ

আসাদুল ইসলাম সবুজ ॥ লালমনিরহাটে প্রাণ-ফ্রুটো (ম্যাংগো জুস) খেয়ে ৫ শিশু অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। ওই ৫ জন শিশুর মধ্যে ৪ জন সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরলেও ১ জনকে আবারও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অসুস্থ্য শিশুরা হল, সদর উপজেলার গুড়িয়াদহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী ও গোকুন্ডা ইউনিয়নের গুড়িয়াদহ ডারারপার গ্রামের সৈয়দ আলীর কন্যা সুফিয়া খাতুন (১০) ও সুমাইয়া খাতুন (৭), একই এলাকার এমদাদুলের কন্যা ইনু খাতুন (৬), সাইদুল ইসলামের কন্যা সাদিয়া খাতুন (৪) ও সৈয়দ আলীর নাতনি হাবিবা খাতুন (৫)।

জানা গেছে, রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় সদর উপজেলার গোকুন্ডা ইউনিয়নের গুড়িয়াদহ গ্রামের রাজমিস্ত্রী মাইদুল ইসলাম বাড়ির পাশের আলী হোসেনের মুদির দোকান থেকে ২৫০ মিঃলিঃ প্রাণ- ফ্রুটো (ম্যাংগো জুস) ক্রয় করেন। ওই জুস ৫ শিশুদের মধ্যে ভাগ করে দেন। শিশুরা জুস খাওয়ার প্রায় ৩০ মিনিট পর মাথা ঘুরে মাটিতে পরে যায়। পরে প্রায় ৩ ঘন্টা তাদের মাথায় পানি ঢেলেও সুস্থ্য না হওয়ায় লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। প্রাথমিকভাবে সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে ৫ শিশু চিকিৎসকরা দিয়ে বাড়ি ফিরেন। শিশুরা চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ফেরার কয়েক ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও এখনো শরীরের কোন হুস পাচ্ছে না। এদের মধ্যে সুফিয়া খাতুনের অবস্থা অনেকটাই আংশকাজনক।

লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন সুফিয়া খাতুন। ছবি: নতুন বাংলার সংবাদ


ফলে সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টায় আবারও তাকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে প্রাণ- ফ্রুটো (জুস) এর বোতল চেক করে দেখা যায় গত ৮/৭/২২ইং তারিখ উৎপাদন করা হয়েছে। যার মেয়াদ আগামী ৭/৪/২০২৩ইং সাল পর্যন্ত রয়েছে।

শিশু পরিবার জানান, প্রায় ১৫ ঘন্টা পরে ৫ জন শিশুর মধ্যে ৪ জন কিছুটা সুস্থ্য হয়েছে। কিন্তু সুফিয়া খাতুনের অবস্থা বেগতিক দেখে সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টায় আবারও লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে বর্তমানে হাসপাতালের ৩য় তলার ২নং বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক বলেন, যে প্রাণ- ফ্রুটো (ম্যাংগো জুস) খেয়ে তারা অসুস্থ্য হয়েছে এতে ভেজাল ছিল। তবে তারা বড় ধরণের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছেন।

২৫০ মিলি প্রাণ- ফ্রুটো (ম্যাংগো জুস) ক্রেতা মাইদুল ইসলাম বলেন, বাড়ির পাশে আলী হোসেনের দোকান থেকে জুস কিনে শিশুদের দিয়েছি। তারা জুস খেয়ে অসুস্থ্য হওয়ার আমি অবাক হয়েছি। এমন ঘটনায় এলাকা জুড়ে আতংক ছড়িয়ে পড়ে এবং শত শত এলাকাবাসী দেখার জন্য ভীড় করেন।

দোকানদার আলী হোসেন জানান, স্থানীয় ডিলালের কাছে ওই জুস ক্রয় করেন। কোনদিন এমন হয়নি। এবার ৫ শিশু অসুস্থ্যতায় দুঃচিন্তায় পড়েছি।

এ বিষয়ে গুড়িয়াদহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোছাঃ জাহানারা বেগম বলেন, ৫জন শিক্ষার্থী স্কুলে না আসায় শিক্ষক ও অভিভাবকদের মাধ্যমে জানতে পারলাম তারা অসুস্থ্য। গতকাল তারা জুস খেয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। তবে কোন কোম্পানির জুস তা তিনি জানেন না।

এ ব্যাপারে লালমনিরহাট সদর অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। প্রাণ- ফ্রুটো (ম্যাংগো জুস) খেয়ে ৫ শিশু অসুস্থ্য হয়ে পড়ে বলে প্রাথমিক ভাবে এলাকাবাসী ধারণা করছেন। তবে ৫ জন শিশুর মধ্যে ৪জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছে আর ১জন এখনো হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102