সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০১:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ইলিয়াস মোল্লা’কেই পুনরায় চেয়ারম্যান হিসেবে চায় লাউকাঠী ইউনিয়নবাসী শিক্ষার্থীদের ধাওয়া খেয়ে ভোঁ-দৌড় দিলেন সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা! লালমনিরহাটে পানির নিচে কৃষকের স্বপ্নের ধান! হাতীবান্ধায় ন্যাশনাল ব্যাংকের করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ভুট্টাক্ষেতে মিলল স্কুলছাত্রীর মরদেহ তিস্তা বাঁচাও ভাঙ্গন ঠেকাও শীর্ষক তিস্তা কনভেনশন কাজীর কান্ড! কাবিননামা নিতে ৩০ হাজার টাকা দাবি মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে দুই পুলিশ কর্মকর্তা আহত! লালমনিরহাটে বিএনপির বাইসাইকেল র‍্যালিতে মির্জা ফখরুল লালমনিরহাটে অস্ত্রসহ ৪ জন জনতার হাতে আটক।। পুলিশে সোপর্দ

লালমনিরহাটে বিএডিসি’র অফিসের কান্ড, ব্রীজ আছে, রাস্তা নেই!

আসাদুল ইসলাম সবুজ
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২২
  • ১৮৪ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কথায় আছে, সরকারের মাল দরিয়ায় ঢাল, তাই অপরিকল্পিত ভাবে প্রয়োজন ছাড়াই সরকারের অর্থ লোপাটের জন্য লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নে রাস্তা ছাড়াই খালের উপর ব্রীজ নির্মাণ করা হয়েছে। ব্রীজের দুইপাশের গ্রামের মানুষ বাঁশ ঝাড়, বাঁশের বেড়া এবং রাস্তা না থাকার কারনে যাতায়াত করতে পারছেনা।

স্থানীয়দের কোনও কাজে আসছে না ১৮ লক্ষ ২০ হাজার ৮ শত ২৮ টাকা ৫৭ পয়সার ব্যয়ে নির্মিত এই ব্রীজ। জানা যায়, উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের পূর্ব বড়ুয়া ও ছড়ারপাড় গ্রামের সংযোগস্থলে বাঁশঝাড় ও ফসলি মাঠ। মাঝখানে রয়েছে একটি (ছড়ারপাড়) খাল। একই গ্রামের মানুষের চলাচলের রাস্তা নেই। অথচ বাঁশঝাড় ও ফসলি মাঠের মাঝখানে নির্মাণ করা হয়েছে ব্রীজটি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি)র আওতায় ২০১৯-২০২০ইং অর্থবছরে কুলাঘাট ইউনিয়নের বড়ুয়া গ্রামের ছড়ারপাড় খালের উপর ১৮লক্ষ ২০হাজার ৮শত ২৮টাকা ৫৭পয়সা ব্যয়ে মাঝারি আকারের হাইড্রোলিক স্ট্রাকচার (ফুটব্রীজ) নির্মাণ করা হয়। নির্মাণ ব্যয় পরিশোধ করে রংপুর অঞ্চলে ভূ-উপরিস্থ পানি সংরক্ষণের মাধ্যমে ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন ও সেচ দক্ষতা বৃদ্ধিকরণ প্রকল্প বিএডিসি রংপুর।

২০২০ সালের ২৮ জানুয়ারি বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) কুলাঘাট খালের উপর মাঝারী আকারের হাইড্রোলিক স্ট্রাকচার (ফুটব্রীজ) নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন করেন লালমনিরহাট সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ কামরুজ্জামান সুজন।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ছিলেন ঢাকা ফার্মগেট ১০৪ গ্রীণ রোডস্থ মেসার্স নজরুল এন্টারপ্রাইজ। বিএডিসির লোকজন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও এখন পর্যন্ত সড়ক নির্মাণে কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।

সেই থেকে যোগাযোগ বিড়ম্বনায় ওই এলাকার কয়েক হাজার মানুষ। ব্রীজটি সোজা পূর্ব-পশ্চিম দিক বরাবর লম্বা। ব্রীজটির পশ্চিমে পূর্ব বড়ুয়া ও মোজাম্মেল হকের বাড়ি রয়েছে। সেখানে ১হাজার ২শত মানুষের বসবাস রয়েছে। ব্রীজটির পূর্বে ছড়ারপাড় ও মাহিদুল ইসলামের বাড়ি রয়েছে। সেখানে ৬শত মানুষের বসবাস রয়েছে। পাশেই রয়েছে একটি ঈদগাহ মাঠ সেখানে দুই এলাকার মানুষ ঈদের নামাজ আদায় করে।

এলাকাবাসী মোতালেব হোসেন ও মোজাম্মেল হক বলেন, ব্রীজটির মুখ বরাবর জমির মালিক বেলাল হোসেনের পুত্র আঃ ছালাম। ব্রীজটির সামনের জমির যে মালিক তিনি রাস্তার জন্য জমি দিবেনা। তাই তিনি গর্ত করে রেখেছেন। সেই সঙ্গে তিনি বাঁশ দিয়ে বেড়া স্থাপন করেছেন যাতে মানুষজন চলাচল করতে না পারে। ব্রীজের দুইপাশে সকলের জমি থাকায় প্রতিনিয়ত পারাপার হতে হচ্ছে বিকল্প উপায়ে। ফলে ব্রীজ থাকলেও রাস্তা না থাকায় চলাচল করতে পারছে না এলাকাবাসী।

ওই এলাকার সোলায়মান আলী সবুজ বলেন, বড়ুয়া ও ছড়ারপাড়ের মানুষের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপনের জন্য ব্রীজটি নির্মাণ করা হয়। কিন্তু রাস্তা নির্মাণ না করেই ব্রীজ করা হয়েছে। এ জন্য মানুষের কাজে আসছে না। মানুষের চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। দ্রুত রাস্তা নির্মাণের দাবি জানাই।

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) লালমনিরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী হুসাইন মোহম্মদ আলতাফ এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102