শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০১:৩০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কোরবানির ঈদকে ঘিরে লালমনিরহাট সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় গরু পাচারকারীরা বেপোরয়া নীরবে মানবসেবা করে যাচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান সুজন নীরবে মানবসেবা করে যাচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান সুজন লালমনিরহাটের সিনিয়র সাংবাদিক লাভলু শেখের পিতার মৃত্যুতে দোয়া মাহফিল আমি ডিসিকে পর্যন্ত ছাড়ি নাই…..! নানা আয়োজনে লালমনিরহাটে ভাষা সৈনিক মরহুম মনিরুজ্জামানের জন্মবার্ষিকী পালিত লালমনিরহাটে রেলওয়ে টিএলআরদের স্মারকলিপি ও মানববন্ধন বিশ্ব কবুতর দিবস উপলক্ষ্যে লালমনিরহাটে শোভাযাত্রা সুন্দরগঞ্জ আ.লীগের নতুন কমিটি:আফরুজা বারী সভাপতি, আশরাফুল সম্পাদক সুন্দরগঞ্জে ৬ বছর পর আজ আ’লীগের সম্মেলন, স্বচ্ছ নেতৃত্ব চায় তৃণমূল

লালমনিরহাটে পানির নিচে কৃষকের স্বপ্নের ধান!

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৭ মে, ২০২২
  • ৯৯ বার দেখা হয়েছে

আসাদুল ইসলাম সবুজ ।। লালমনিরহাটে ক্ষেতের পাকা বোরো ধান নিয়ে মহাবিপাকে পড়েছেন কৃষকরা। পাকা ধান পানির নিচে পড়ে পচে যাচ্ছে ক্ষেতেই। এক দিকে শ্রমিক সংকট ও অন্য দিকে ধান ঘরে তোলার মুহূর্তে বৈরি আবহাওয়ার কারণে কৃষকদের কপালে দেখা দিয়েছে চিন্তার ভাঁজ। ফলে কৃষকের মুখে নেই হাঁসি।

কৃষক হাশেম আলী জানান, ‘ধান ভালো হয়েছিল। পাকা ধান প্রায় এক সপ্তাহ ধরে হাঁটুপানির নিচে পড়ে আছে। বোরো ধানের গাছ পচে যাচ্ছে। অনেক চেষ্টার পর কিছু ধান বাড়িতে তুললেও তা রোদের অভাবে শুকাতে পারছেন না। ফলে বাড়িতেই ধানে অঙ্কুর গজিয়েছে। ধান নিয়ে খুবই বিপদে আছি।’

শুধু হাশেম আলী নন, এমন বিপদে আছেন লালমনিরহাটের ৫টি উপজেলার আরও অনেক কৃষক। পবিত্র মাহে রমজান মাস শুরু থেকে থেমে থেমে শিলাবৃষ্টি শুরু হয় জেলা জুড়ে। কয়েক দফায় শিলাবৃষ্টি আর ঝড়ে উঠতি বোরো ধান নিয়ে বড় দুশ্চিন্তায় পড়েন কৃষকরা। সেই সাথে বৃষ্টিপাত ও ঝোড়ো বাতাসে জেলার বোরো ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

লালমনিরহাট জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর জানায়, চলতি মৌসুমে জেলার ৫টি উপজেলায় ৪৭ হাজার ৩০৫ হেক্টর বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। অর্জিত হয়েছে ৪৭ হাজার ৮১৫ হেক্টর। জেলায় চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২ লাখ ৭ হাজার ৯৭৯ মেট্রিক টন। বোরো ধান ঘরে তোলা পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে চালের উৎপাদন কিছুটা বাড়বে।

এমনটাই ধারনা বোরো চাষাবাদ শুরুতে লক্ষ্য করা হলেও এবার বৈরী আবহাওয়ায় শঙ্কা দেখা দিয়েছে। তবে বোরো চাষাবাদে লক্ষ্যমাত্রা পুরণ না হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।

জানা গেছে, তিস্তা ও ধরলা নদী বেষ্টিত জেলা লালমনিরহাটের অর্থনীতির প্রধান চাবিকাঠি কৃষি। বছরে দুই থেকে তিনবার ধান উৎপাদন হলেও বোরো ধানের ফলন বেশি এ জেলায়। যদিও এ ধান উৎপাদনে খরচ বেশি। দিনমজুর, সেচ, সার ও কীটনাশকের দাম বেড়ে যাওয়ায় উৎপাদন খরচ বেড়েছে। এ বছর বৈরী আবহাওয়ার কারণে অনেকটা শঙ্কায় পড়েছে ধান চাষীরা। পাকা ধান শিলাবৃষ্টির কবলে পড়লে গোলা ভড়ানো কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।

জেলার কিছু কিছু এলাকায় শিলাবৃষ্টি আর ঝড়ের কারণে ফলন কিছুটা কম হলেও বেশিভাগ অঞ্চলে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলনে এসব কৃষক পরিবার খুশি থাকলেও শ্রমিক মজুরিও বেড়েছে কয়েকগুন। তাই বোরো ধানে উৎপাদন খরচও বেড়েছে। অপরদিকে বৈরী আবহাওয়ায় প্রায় প্রতিদিনই আকাশ কালো মেঘে ছেয়ে যায়। ফলে পাকা ধান হাঁটু পানি পড়ে সমূলে বিনষ্ট হচ্ছে।

মহেন্দ্রনগর এলাকার কৃষক বাবু মিয়া বলেন, আকাশের যে অবস্থা। প্রতিদিন আকাশ ডাকাডাকি করে। বৈশাখ মাস আসার আগেই শিলাবৃষ্টি আর এখন রাত হলেই বৃষ্টি শুরু হয়। ফলে পাকা ধান হাঁটু পানির নিচে চলে গেছে। বোরো ধান বাড়িতে তুলতে পারছি না। পানির নিচে পড়ে থাকা ধান কাটতে শ্রমিকদের অনেক দাম দিতে হচ্ছে। তাই এবার ধান চাষাবাদে লোকসান গুনতে হবে।

কৃষক সবজান আলী বলেন, এবার বোরো ধানের ফলন যা হয়েছে এতেই খুশি। ধান ঘরে তোলা পর্যন্ত আকাশ ভালো থাকলেই হয়। কিন্তু এবার এক দিকে শ্রমিক সংকট ও অন্য দিকে ধান ঘরে তোলার মুহূর্তে বৈরি আবহাওয়ার কারণে দুঃচিন্তায় পড়েছি। ধান মাড়াই খরচ যোগাতে কম দামেই বিক্রি করতে হচ্ছে। সব জিনিসের দাম বাড়ে। কমে শুধু কৃষকের কষ্টের ফসলের দাম।

লালমনিরহাট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ পরিচালক শামীম আশরাফ বলেন, কিছুটা বৈরী আবহাওয়ার মাঝেও বোরোর ফলন মোটামুটি ভালই হয়েছে। ধান ঘরে তোলা পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে কৃষকরা লাভবান হবেন। বৈশাখ মাসে বোরো ধান মাড়াই শুরু করেন জেলার কৃষকরা। এ বছর বৈরী আবহাওয়ার কারণে অনেকটা শঙ্কায় পড়েছে ধান চাষীরা।

তবে কি পরিমাণ বোরো ধান পানির নিচে পড়ে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক বলেন, উপজেলা কৃষি অফিসের মাধ্যমে তা পর্যাবেক্ষণ করা হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102