বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন

লালমনিরহাটে অটো চালককে গলাকেটে হত্যা, গ্রেপ্তার ২

বিশেষ প্রতিনিধি ।।
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৮২ বার দেখা হয়েছে
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে মমিনুর ইসলাম এবং রংপুর মহানগরীর আশরতপুর ঈদগাহ পাড়ার মৃত বাবুল চৌধুরীর ছেলে সুজন চৌধুরী।ছবি : নতুন বাংলার সংবাদ

বিশেষ প্রতিনিধি ।। লালমনিরহাটে সুলতান হোসেন নামে এক অটো চালককে গলাকেটে হত্যার ঘটনায় দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর বিকেলে র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক রেজা আহমেদ ফেরদৌস এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

এর আগে, গত ৬ সেপ্টেম্বর সকালে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা ইউনিয়নের ইশোরকোল এলাকার তিস্তা নদীর একটি শাখা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত সুলতান হোসেন রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার দর্জিপাড়া গ্রামের আব্দুল গফুর মিয়ার ছেলে।

সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর বিকেলে র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক রেজা আহমেদ ফেরদৌস এক সংবাদ সম্মেলন করেন।
ছবি : নতুন বাংলার সংবাদ


গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে মমিনুর ইসলাম এবং রংপুর মহানগরীর আশরতপুর ঈদগাহ পাড়ার মৃত বাবুল চৌধুরীর ছেলে সুজন চৌধুরী।

র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক রেজা আহমেদ ফেরদৌস সংবাদ সম্মেলনে জানান, প্রতিদিনের মতো গত ৫ সেপ্টেম্বর বিকেলে সুলতান মিয়া নিজ বাড়ি থেকে অটোরিক্সা নিয়ে রংপুর নগরীর পার্কের মোড় এলাকায় আসেন। সেখানে সুজন ও তার সহযোগী মমিনুর মিলে সুলতানের অটোরিক্সাটি ভাড়া নেন এবং যতক্ষণ পর্যন্ত অটোর চার্জ থাকবে ততক্ষণ চড়বেন বলে ঠিক করেন।

এরপর, পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী সুলতানকে পার্কের মোড় থেকে মহিপুর ব্রিজ হয়ে কালীগঞ্জের দিকে নিয়ে আসেন। সেখানে চা সিগারেট খাওয়ার বাহানা করে সময়ক্ষেপণ করেন তারা।

পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে সুজন ও মমিনুর ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে সুলতানের মরদেহ তিস্তা সেচ ক্যানেলে ফেলে দেয়। পরদিন সকালে স্থানীয়রা গলাকাটা মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

সুলতানের অটোরিক্সাটি কালীগঞ্জের মহিষামুড়ি এলাকার সাদেকুল ইসলামের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরিটিও উদ্ধার করেছে র‌্যাব।
ছবি : নতুন বাংলার সংবাদ

এ সময় মরদেহের পকেটে মোবাইল ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়। পরে, মোবাইল থেকে মৃত ব্যক্তির পরিচয় সনাক্ত করে তার পরিবারকে খবর দেয় পুলিশ।

এরপর পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে মরদেহটি শনাক্ত করে এবং কালীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এদিকে, মামলার পর থেকে ছায়া তদন্ত শুরু করে র‌্যাব। তারই প্রেক্ষিতে রোববার রংপুর নগরীতে অভিযান চালিয়ে সুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী কালীগঞ্জ থেকে মমিনুরকেও গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

পরে তাদের দেয়া তথ্য মতে, ১৭ হাজার টাকায় বিক্রি করা সুলতানের অটোরিক্সাটি কালীগঞ্জের মহিষামুড়ি এলাকার সাদেকুল ইসলামের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরিটিও উদ্ধার করেছে র‌্যাব। ছবি : নতুন বাংলার সংবাদ

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব অধিনায়ক আরো জানান, প্রযুক্তি ব্যবহার করে এ হত্যাকান্ডের ক্লু ও হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই চক্রের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। তাদেরকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102