বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৫৫ অপরাহ্ন

যেভাবে ধনীর দুলালদের ব্ল্যাকমেইল করতেন ‘রাতের রানী’ পিয়াসা-মৌ

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৪ আগস্ট, ২০২১
  • ১৪৪ বার দেখা হয়েছে
ছবি: সংগৃহীত

বাংলার সংবাদ ডেস্ক ।। মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও মৌ আক্তার। দিনভর ঘুমালেও রাতে ভয়ংকর হয়ে উঠতেন তারা। রাতের আঁধারে ধনী পরিবারের সন্তানদের ডেকে আনতেন বাসায়। সুন্দরী দুই মডেলের ডাকে বাসায় এলেও সর্বস্ব খোয়াতেন ধনীর দুলালীরা। পার্টির নামে বাসায় ডেকে তাদের সঙ্গে আপত্তিকর ছবি-ভিডিও ধারণ করে রাখতেন পিয়াসা ও মৌ।

অবশেষে আলোচিত মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসাসহ মৌ আক্তারকে আটক করেছে ডিবি পুলিশ। রোববার রাত পৌনে ১২টায় বারিধারার ৯ নম্বর রোডের ৩ নম্বর বাসা থেকে পিয়াসাকে আটক করা হয়। এছাড়া রাত ১টার দিকে আটক হন মরিয়ম আক্তার মৌকে (মৌ আক্তার)।

ডিবি জানায়, আটক দুই মডেল একটি সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য। তারা উচ্চবিত্তদের ব্ল্যাকমেইলিং করতেন। রোববার রাতে পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

এ বিষয়ে মোহাম্মদপুরে মৌয়ের বাড়ির নিচে সংবাদ সম্মেলন করেন ডিবি উত্তর বিভাগের যুগ্ম কমিশনার হারুন-অর রশীদ।

তিনি বলেন, পিয়াসা ও মৌ একটি সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে আমরা অনেক ব্ল্যাকমেইলের অভিযোগ পেয়েছি। সেসব ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে রোববার তাদের বাসায় অভিযান চালানো হয়। দুজনের বাসায় বিদেশি মদ, ইয়াবা ও সিসা পাওয়া গেছে। মৌয়ের বাড়িতে মদের বারও ছিল।

হারুন-অর রশীদ বলেন, আটক দুই মডেল হচ্ছেন রাতের রানী। তারা দিনের বেলায় ঘুমাতেন আর রাতে এসব কর্মকাণ্ড করতেন। উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানদের পার্টির নামে বাসায় ডেকে আনতেন তারা। বাসায় এলে তারা তাদের সঙ্গে আপত্তিকর ছবি-ভিডিও ধারণ করে রাখতেন। পরবর্তীতে সেসব ভিডিও ও ছবি ভুক্তভোগীদের পরিবারকে পাঠাবে বলে ব্ল্যাকমেইল করে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিতেন।

তিনি আরো বলেন, বাসায় মাদক পাওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে মোহাম্মদপুর ও গুলশান থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হবে। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের অভিযোগ থাকায় এ সংক্রান্ত মামলাও হবে। এসব মামলায় তাদের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

২০১৭ সালের মে মাসে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণের শিকার হন দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী। ওই ঘটনায় করা মামলার এজাহারভুক্ত পিয়াসা। সেই ঘটনায় সারাদেশে তোলপাড় শুরু হয়। প্রথমে মামলা করতে ভুক্তভোগীদের সহযোগিতা করেছিলেন পিয়াসা। কিন্তু পরে পিয়াসার বিরুদ্ধেই মামলা তুলে নেয়ার হুমকির অভিযোগে জিডি করেন ভুক্তভোগীদের একজন। সেই ঘটনার চার বছর পর ফের আলোচনায় মডেল পিয়াসা।

বিভিন্ন সময় নানা ঘটনায় খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন মডেল পিয়াসা। ২০১৭ সালের মে মাসে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণের শিকার হন দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী। ওই ঘটনায় করা মামলার এজাহারভুক্ত পিয়াসা। সেই ঘটনায় সারাদেশে তোলপাড় শুরু হয়।

প্রথমে মামলা করতে ভুক্তভোগীদের সহযোগিতা করেছিলেন আলোচিত এ মডেল। কিন্তু পরে পিয়াসার বিরুদ্ধেই মামলা তুলে নেয়ার হুমকির অভিযোগে জিডি করেন ভুক্তভোগীদের একজন। সেই ঘটনার চার বছর পর ফের আলোচনায় মডেল পিয়াসা।

এশিয়ান টেলিভিশনের সাবেক পরিচালক এবং প্রিভিউ কমিটির প্রধান ছিলেন ফারিয়া পিয়াসা। দীর্ঘদিনের প্রেমিক ব্যবসায়ী শাফাত আহমেদকে বিয়ে করেন তিনি। এনটিভির রিয়েলিটি শো ‘সুপার হিরো সুপার হিরোইন’র অন্যতম প্রতিযোগী ছিলেন ফারিয়া পিয়াসা।

সবশেষ গুলশানের অভিজাত ফ্ল্যাট থেকে মোসারাত জাহান মুনিয়া নামে এক তরুণীর লাশ উদ্ধারের পর যে মামলা হয়েছিল সেখানেও পিয়াসার নাম ছিল।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102