শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:০৭ অপরাহ্ন

মুদির দোকানের আড়ালে লিটনের মদ, জুয়া, সুদ ব্যবসায় প্রাণগেল স্কুল ছাত্রের

স্টাফ রিপোর্টার ।।
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২২
  • ৫৬ বার দেখা হয়েছে
এই সেই লিটন বাবু

এখন আর শহর নয়, গ্রামের মুদির দোকানে হাত বাড়ালে সহজেই মিলছে মাদক, তবে মাদক সেবনকারী জন্য সেখানে রয়েছে বিশেষ সুবিধা বিভিন্ন ধরণে জুয়া খেলা, সেই জুয়া খেলায় টাকা হারলেও কোন সমস্যা নেই, পাওয়া যায় সুদের টাকা।

গ্রামবাসী গণপিটিশনে জানা গেছে, লালমনিরহাটে সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের চিনিপাড়া ও হারাটী ইউনিয়নের পশ্চিম আমবাড়ী গ্রামে মুদির দোকানের আড়ালে এসব মাদক, জুয়া, সুদের ব্যবসার মত অবৈধ কার্যক্রমে লিপ্ত মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের চিনিপাড়া গ্রামের মোঃ নজরুল ইসলামের ছেলে ধর্ষণের চেষ্টা মামলার আসামী লিটন বাবু। তার বাড়ি থেকে প্রায় দেড় কিঃ মিঃ দুরে চিনিপাড়া ও পশ্চিম আমবাড়ী ২ গ্রামের মাঝে একটি মুদির দোকানের প্রতিদিন গভীর রাত পর্যন্ত অচেনা যুবকরা আড্ডা জমিয়ে জুয়া, মদ, গাঁজা খেতে অংশ নেন। মাঝে মাঝে সেখানে মারামারি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

চলতি বছরে লিটন বাবুর জুয়ার কবলে পড়ে প্রাণ গেছে পশ্চিম আমবাড়ী গ্রামের সালা উদ্দিনের স্কুল পড়ুয়া একমাত্র ছেলে শরিফুল ইসলামের। লিটন বাবু তার মোবাইল বন্ধক রেখে সুদের টাকা নিয়ে জুয়া খেলে সব টাকা হেরে বাড়ীতে গিয়ে আতœহত্যা করেন। শুধু তাই নয়, এলাকার ৩ জন মেয়েকে ধর্ষনের চেষ্টা করেন। পরে তাদের হাত-পা ধরে ক্ষমা চেয়ে বেঁচে গেলেও (১২ আগষ্ট) সকালে লিটন বাবুর দোকানে চিনিপাড়া গ্রামের এক গৃহবধূ চাউল কিনতে গেলে জোড়পূর্বক ধর্ষনের চেষ্টা করেন। এ ঘটনায় লিটন বাবুকে আসামী করে থানায় মামলা করেন ওই গৃহবধূ। যার মামলা নং-৫১।

এ মামলা হওয়ার পর থেকে লিটন বাবু পলাতক থেকে আদালতে জামিন নিয়ে এসে মুদির দোকান খুলে আবার শুরু করেন সেই জুয়া, গাঁজা, সুদের ব্যবসা। অবৈধ টাকার জোড়ে দোকানে সামনে বসিয়ে রাখেন ২০/২৫ ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী। অসামাজিক কাজে বাঁধা দেওয়ায় সেই ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা স্থানীয় লোকজনকে হুমকি ধমকি সহ মিথ্যা মামলাও করেন ধর্ষণের চেষ্টা মামলার আসামী লিটন বাবু নিজেই। এসব অনৈতিক কর্মকান্ডে ক্ষিপ্ত হয়ে এলাকাবাসী (১৯ অক্টোবর) গ্রাম্য সালিশ বৈঠকে বসলে লিটন বাবু দোকান সরানোর জন্য (১ নভেম্বর) পর্যন্ত সময় নিয়ে লিখিত স্বীকার উক্তি দেন। বেঁধে দেয়া সময় পেরিয়ে গেল লিটন বাবু ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দ্বারা তার মুদির দোকানটি পুরাতন জায়গার পাশের বাশঝাড়ের নিচের জমিতে রাখা হয়েছে।

সেই জায়গার মালিক আইয়ুব আলী। সুদের টাকার জোড়ে লিটন বাবু গ্রাম বাসির সাথে চ্যালেন্স ছুড়ে আইয়ুব আলীকে ম্যানেছ করে দোকান রাখেন। সেখান থেকে এখন আর দোকান সরাচ্ছেন না। এবার দু’গ্রামের এলাকাবাসী সোচ্ছার হয়ে নভেম্বর মাসে লিটন বাবু অবৈধ ব্যবসা ও দোকান উচ্ছেদে গ্রামবাসী স্বাক্ষরিত একটি গণপিটিশন লালমনিরহাট সদর থানায় দায়ের করেন। লিটন বাবু অবৈধ ব্যবসা ও দোকান উচ্ছেদে একজন চেয়ারম্যান ও একজন ইউপি সদস্যও সুপারিশ করেছেন। মুলতঃ সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে (৪ নভেম্বর) সদর থানা পুলিশ তদন্ত শুরু করেছেন।

গণপিটিশনে স্বাক্ষরকারী এলাকাবাসী ছায়দ্দিন, এরশাদুল ক্ষোভ সাথে বলেন, নারী লোভী, জুয়া, গাঁজা, সুদের ব্যবসায়ী লিটনের এই এলাকায় দোকান থাকবে না। তার দোকানের কারণে এলাকা যুব সমাজ নষ্ট হচ্ছে। তার অবৈধ ব্যবসা ও দোকান উচ্ছেদে গ্রামবাসীর গণপিটিশন লালমনিরহাট সদর থানায় দায়ের পর লিটন বাবু ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এমনকি বিভিন্ন ভাবে গণপিটিশনে সইদাতাকে হুমকি দমকি দিচ্ছেন। তাতেও কোন লাভ না হওয়ায় লিটন বাবু সই দাতার কয়েকজনের নামে থানায় মিথ্যা অভিযোগ করেন।

অপর এলাকাবাসী আমিনুর ও আর্জিনা বেগম বলেন, মাদক ও সুদ ব্যবসায়ী লিটন বাবু কবলে সুদের টাকা নিয়ে জুয়া খেলে বাড়ীতে গিয়ে আতœহত্যা করেন এলাকার এক ছাত্র। নিজের অপকর্ম ঢাকতে লিটন বাবু এবার তার এলাকার কিছু মানুষের নাম ব্যবহার করে ঘরে বসে তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা মিলে দু’হাত বদলে সই করে একটি মিথ্যা গণপিটিশন থানায় দেন। কিন্তু লিটন বাবু যে দু’গ্রামের মাঝে মুদির দোকান করেন সেখানকার গ্রামবাসী তার পক্ষের গণপিটিশনে কোন সই করেননি। অথচ লিটন বাবুর পক্ষে সেই গণপিটিশনে তার এলাকার মানুষের ভুয়া সই দেখানো হয়েছে। ফলে লিটনের বিরুদ্ধে প্রশাসনের পদক্ষেপ নেয়া জরুরী বলে এলাকাবাসী মনে করেন।

তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত লিটন বাবু বলেন, এসব ষড়যন্ত্র মুলক মিথ্যা। আমাকে হয়রানী করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে গ্রামবাসী স্বাক্ষরিত একটি গণপিটিশন পেয়ে লালমনিরহাট সদর থানায় উপপরিদর্শক ওসি (তদন্ত) মোজাম্মেল হক জানান, অবৈধ কার্যক্রম বন্ধে পুলিশ সজাগ। অভিযুক্ত লিটন বাবুও আইনের উর্দ্ধে নয়, সময় মত তার বিরুদ্ধে গণপিটিশনেরও যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102