শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৬:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মই দিয়ে ৫ কোটি টাকায় সেতুতে উঠছেন স্থানীয়রা! ইলিয়াস মোল্লা’কেই পুনরায় চেয়ারম্যান হিসেবে চায় লাউকাঠী ইউনিয়নবাসী শিক্ষার্থীদের ধাওয়া খেয়ে ভোঁ-দৌড় দিলেন সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা! লালমনিরহাটে পানির নিচে কৃষকের স্বপ্নের ধান! হাতীবান্ধায় ন্যাশনাল ব্যাংকের করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ভুট্টাক্ষেতে মিলল স্কুলছাত্রীর মরদেহ তিস্তা বাঁচাও ভাঙ্গন ঠেকাও শীর্ষক তিস্তা কনভেনশন কাজীর কান্ড! কাবিননামা নিতে ৩০ হাজার টাকা দাবি মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে দুই পুলিশ কর্মকর্তা আহত! লালমনিরহাটে বিএনপির বাইসাইকেল র‍্যালিতে মির্জা ফখরুল

মানবাধিকার বান্ধব পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২৮ মে, ২০২১
  • ২৭ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ।। বাংলাদেশ পুলিশের সাহসী অফিসার আবিদা সুলতানা (এসপি) লালমনিরহাট জেলার নেতৃত্ব ও দায়িত্ব সহ কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে জন-মানুষের মাঝে ব্যাপকহারে প্রশংসা কুড়িয়েছে। তারই ফলস্বরূপ গত ১২ জুন ২০২০ ইং তারিখে (মানবাধিকার বান্ধব) পুলিশ সুপার হিসাবে আবিদা সুলতানাকে ঘোষণা করেন ❝মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা ও বাস্তবায়ন সংস্থা❞ এর রংপুর বিভাগীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি (প্রশাসন) এবং ❝ওয়ার্ল্ড হিউম্যানিটি কমিশন❞ এর প্রতিনিধি মুহাম্মদ সাজ্জাদুর রহমান।

এবিষয়ে মুহাম্মদ সাজ্জাদুর রহমান (২৮ মে) শুক্রবার সকালে জানান, লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা তার কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে জন-সাধারণের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন এবং তার কর্মে নিশ্চয়ই প্রশংসার দাবিদার। ভবিষ্যতেও দেশ ও জাতি তথা সমাজের জন্য উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড সহ মানবিক কর্মে নিজেক। প্রশস্ত করবেন এটাই প্রত্যাশা করি নিরন্তর।

উল্লেখ্য যে, লালমনিরহাটের আদিতমারি থানার ভেলাবাড়ি ইউনিয়নের বাগদির বাজারের একটি নিরীহ বেওয়ারিশ কুকুরকে অমানবিক কশাই (গরুর মাংশ বিক্রেতা) ছুরি মারে। ছুরিটি কুকুরটির পেটে এফোঁড় ওফোঁড় হয়ে বিঁধে থাকে। অসহ্য যন্ত্রনায় সারাদিন কোঁকাতে থাকে।

কুকুরটির অসহায়ত্বের ভিডিও ধারণ করে পশু প্রেমিক তার ফেসবুক টাইমলাইনে শেয়ার করেন এবং পশুর প্রতি এধরণের নিষ্ঠুরাতা প্রতিরোধের লক্ষ্যে মানুষকে সচেতন করার জন্য সংশ্লষ্ট মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তারপর সেখান থেকে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকের হাজারো একাউন্টে।

সেই ভিডিওটি নজরে আসে মিসেস জীশান মীর্জা, সভানেত্রী, বাংলাদেশ পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) এবং আইজিপি মহোদয়ের সহধর্মিণীর। নিরীহ একটি প্রাণীর প্রতি এমন অমানবিক নিষ্ঠুরতার বিষয়টি তিনি পুলিশের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের অবগত করেন। পুলিশ ঘটনাটিকে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল সনাক্ত করতে এবং ছুরিকাঘাতকারী সেই কষাইকে খুঁজে বের করতে কাজে নেমে পড়ে।

যাহার দায়িত্বভার অর্পিত হয় লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানার কাছে এবং তার নির্দেশে আদিতমারি থানা পুলিশ উক্ত ব্যক্তি (আনারুল কশাইকে) খুঁজে বের করতে সক্ষম হয় এবং আটক করে আইনের আওতায় আনে। সেই সাথে আহত কুকুরটির উন্নত চিকিৎসার জন্য ❝এনিমেল রেসকিউয়ার অফ বাংলাদেশ❞ এর সাথে যোগাযোগ করে। সংবাদ পেয়ে সংগঠনটির প্রধান, কেয়া চৌধুরী ও রূকসাৎ হক কুকুরটির উন্নত চিকিৎসার উদ্দ্যোগ নেন। পরবর্তিতে তাদের পাঠানো প্রতিনিধিদ্বারা আহত কুকুরটিকে উদ্ধার করে ঢাকার উদ্দেশ্য নিয়ে যায়।বাংলাদেশ পুলিশের সাহসী অফিসার আবিদা সুলতানা (এসপি) লালমনিরহাট জেলার নেতৃত্ব ও দায়িত্ব সহ কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে জন-মানুষের মাঝে ব্যাপকহারে প্রশংসা কুড়িয়েছে। তারই ফলস্বরূপ গত ১২ জুন ২০২০ ইং তারিখে (মানবাধিকার বান্ধব) পুলিশ সুপার হিসাবে আবিদা সুলতানাকে ঘোষণা করেন ❝মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা ও বাস্তবায়ন সংস্থা❞ এর রংপুর বিভাগীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি (প্রশাসন) এবং ❝ওয়ার্ল্ড হিউম্যানিটি কমিশন❞ এর প্রতিনিধি মুহাম্মদ সাজ্জাদুর রহমান।

এবিষয়ে মুহাম্মদ সাজ্জাদুর রহমান (২৮ মে) শুক্রবার সকালে জানান, লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা তার কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে জন-সাধারণের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন এবং তার কর্মে নিশ্চয়ই প্রশংসার দাবিদার। ভবিষ্যতেও দেশ ও জাতি তথা সমাজের জন্য উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড সহ মানবিক কর্মে নিজেক। প্রশস্ত করবেন এটাই প্রত্যাশা করি নিরন্তর।

উল্লেখ্য যে, লালমনিরহাটের আদিতমারি থানার ভেলাবাড়ি ইউনিয়নের বাগদির বাজারের একটি নিরীহ বেওয়ারিশ কুকুরকে অমানবিক কশাই (গরুর মাংশ বিক্রেতা) ছুরি মারে। ছুরিটি কুকুরটির পেটে এফোঁড় ওফোঁড় হয়ে বিঁধে থাকে। অসহ্য যন্ত্রনায় সারাদিন কোঁকাতে থাকে।

কুকুরটির অসহায়ত্বের ভিডিও ধারণ করে পশু প্রেমিক তার ফেসবুক টাইমলাইনে শেয়ার করেন এবং পশুর প্রতি এধরণের নিষ্ঠুরাতা প্রতিরোধের লক্ষ্যে মানুষকে সচেতন করার জন্য সংশ্লষ্ট মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তারপর সেখান থেকে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকের হাজারো একাউন্টে।

সেই ভিডিওটি নজরে আসে মিসেস জীশান মীর্জা, সভানেত্রী, বাংলাদেশ পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) এবং আইজিপি মহোদয়ের সহধর্মিণীর। নিরীহ একটি প্রাণীর প্রতি এমন অমানবিক নিষ্ঠুরতার বিষয়টি তিনি পুলিশের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের অবগত করেন। পুলিশ ঘটনাটিকে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল সনাক্ত করতে এবং ছুরিকাঘাতকারী সেই কষাইকে খুঁজে বের করতে কাজে নেমে পড়ে।

যাহার দায়িত্বভার অর্পিত হয় লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানার কাছে এবং তার নির্দেশে আদিতমারি থানা পুলিশ উক্ত ব্যক্তি (আনারুল কশাইকে) খুঁজে বের করতে সক্ষম হয় এবং আটক করে আইনের আওতায় আনে। সেই সাথে আহত কুকুরটির উন্নত চিকিৎসার জন্য ❝এনিমেল রেসকিউয়ার অফ বাংলাদেশ❞ এর সাথে যোগাযোগ করে। সংবাদ পেয়ে সংগঠনটির প্রধান, কেয়া চৌধুরী ও রূকসাৎ হক কুকুরটির উন্নত চিকিৎসার উদ্দ্যোগ নেন। পরবর্তিতে তাদের পাঠানো প্রতিনিধিদ্বারা আহত কুকুরটিকে উদ্ধার করে ঢাকার উদ্দেশ্য নিয়ে যায়।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102