শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৫৪ অপরাহ্ন

‘বৃক্ষ চাচা’ সাদেক

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৩০ জুন, ২০২১
  • ১৪১ বার দেখা হয়েছে
ছবি: সংগৃহীত

বাংলার সংবাদ ডেস্ক ।। বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেকুর রহমান সাদেক নরসিংদীবাসীর কাছে তিনি পরিচিত বৃক্ষ চাচা নামে। কেউবা তাকে বৃক্ষ প্রেমিক, কেউবা পাগল বলেও আখ্যায়িত করে। নরসিংদী সদরের এই বাসিন্দার বয়স আশির কাছাকাছি, যুদ্ধ করেছেন তিন নাম্বার সেক্টরে।

জেলার বিভিন্ন সড়কে গাছ লাগানোর উপকারিতা বিষয়ে পথ সভা করেন মোড়ে মোড়ে, বিলি করেন পরিবেশ বন্ধু ফলজ ও ঔষধি গাছের লিফলেট। খালি জায়গা পেলেই নিজ উদ্যোগে এবং নিজ খরচে রোপণ করেন বিভিন্ন প্রজাতির ঔষধি গাছ।

স্বাধীনতার পরও যুদ্ধ থামিয়ে দেননি এই বীর মুক্তিযোদ্ধা। ২০০৩ সাল থেকে নিজে লাগিয়েছেন অসংখ্য গাছ। গত দেড় যুগে তিনি প্রায় পাঁচ হাজারের বেশি ফল আর ঔষধি গাছ লাগিয়েছেন।

নরসিংদী শহরের দিকটাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেল লাইনের পাশেই লাগিয়েছেন প্রায় ৭শ’ তাল গাছ। কোর্ট রোড সংলগ্ন জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের ভেতরে লাগিয়েছেন অর্জুনসহ বিভিন্ন প্রজাতির ঔষধি গাছ।

তাছাড়াও নরসিংদীর বাইরে ঢাকা সিলেট মহাসড়কের পাশে, রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যান ও বিভিন্ন সরকারি জায়গায় লাগিয়েছেন হরিতকী, বহেরা, অর্জুন ইত্যাদি ঔষধি গাছ। ঢাকা আরিচা মহাসড়কের পাশেও ছায়া দিচ্ছে তার লাগানো অসংখ্য গাছ। নতুন প্রজন্মের কাছে তিনি পৌঁছে দিতে চান ঔষধি গাছের উপকারিতা। সেই সঙ্গে দেশ থেকে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত দেশ গড়তে ঔষধি গাছের প্রয়োজন আছে বলে মনে করেন তিনি।

‘কাঠ গাছ লাগাবো বন জঙ্গলে, ফল আর ঔষধি গাছ লাগাবো বাড়ির আঙিনায়, মসজিদ প্রাঙ্গণে।’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে গাছ লাগানোর পাশাপাশি তিনি কাজ করে যাচ্ছেন জনসচেতনতায়।

বৃক্ষ প্রেমিক সাদেক গাছ লাগাচ্ছিলেন নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশন সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু পার্কে। তার গাছের প্রতি ভালোবাসা এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে কথা হয় তার সঙ্গে।

তিনি বলেন, গত আঠারো বছর ধরেই কাজ করি গাছ নিয়ে। কত গাছ লাগিয়েছি তা হিসেব রাখিনি, রাখার প্রয়োজনও মনে করিনি। এদেশ থেকে দারিদ্র শতভাগ বিলুপ্ত করতে হলে ঔষধি ও ফলজ গাছের বিকল্প নেই। কাঠ গাছ শুধুই কাঠ দেয়, অন্যদিকে ফলজ ও ঔষধি গাছ কাঠের পাশাপাশি ফলও দেয়। আবার কোনো কোনো গাছের ছাল বাকল বেশকিছু রোগের ঔষধ হিসেবেও কাজে লাগে। সত্যিকারের সবুজ বিপ্লব ঘটাতে এবং দেশ থেকে দারিদ্র দূর করতে হলে ঔষধি এবং ফলজ গাছ লাগানোর বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, নতুনদের কাছে গাছের উপকারিতা তুলে ধরতে কাজ করে যাচ্ছি। আমি চাইব আমাদের পরের প্রজন্ম ফলজ এবং ঔষধি গাছের প্রতি গুরুত্ব দিবে এবং সবুজ বিপ্লবের সম্মুখে থেকে কাজ করবে।

নরসিংদীর শিক্ষাবিদ ড. মশিউর রহমান মৃধা জানান, গাছ আমাদের অক্সিজেন জোগায়। গাছ অর্থনীতির বিকাশ ঘটায়। গাছ পুষ্টিকর খাদ্য জোগায়। গাছ দুর্যোগ মোকাবিলা করে। গাছ ছাড়া মানুষ বাঁচবে না। এমনকি কোনো প্রাণী বাঁচবে না। সবাইকে এই মহতী কাজে এগিয়ে আসতে হবে এবং সবাইকে সচেতন হতে হবে। গাছ লাগলে বাঁচবে মানুষ। বাঁচবে সব প্রাণী।

জেলা ভারপ্রাপ্ত বন কর্মকর্তা আব্দুল রশিদ জানান, তিনি স্বেচ্ছায় গাছের চারা রোপণ করে দেশপ্রেমের অনন্য নজির রেখেছেন। বিষয়টি জানা ছিল না। একদিন তিনি বনবিভাগে এসে তিরিশটি চারা গাছ নিয়ে ছিলেন, তখন তার সঙ্গে কথা হয়েছিল। তারপর উনার সঙ্গে আর দেখা হয়নি, তবে আমাদের পক্ষ থেকে সম্ভাব্য সব রকম সহায়তা দেয়া হবে।

নরসিংদী পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন বাচ্চু জানান, সাদেক ভাই, তিনি একজন বৃক্ষ প্রেমিক মানুষ। তিনি একটি অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত বলে মনে করি। এ ব্যাপারে তাকে সার্বিক সহযোগিতা করব।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102