শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১০:২০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
লালমনিরহাটে বসতভিটা ও চাষাবাদের ৩৩ শতক জমি রক্ষায় নিঃস্ব ফৈমুদ্দিন শুধুই কাঁদছেন! লালমনিরহাটের গোকুন্ডায় যৌতুকের দাবীতে গৃহবধুকে অমানসিক নির্যাতনে অভিযোগ মই দিয়ে ৫ কোটি টাকায় সেতুতে উঠছেন স্থানীয়রা! ইলিয়াস মোল্লা’কেই পুনরায় চেয়ারম্যান হিসেবে চায় লাউকাঠী ইউনিয়নবাসী শিক্ষার্থীদের ধাওয়া খেয়ে ভোঁ-দৌড় দিলেন সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা! লালমনিরহাটে পানির নিচে কৃষকের স্বপ্নের ধান! হাতীবান্ধায় ন্যাশনাল ব্যাংকের করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ভুট্টাক্ষেতে মিলল স্কুলছাত্রীর মরদেহ তিস্তা বাঁচাও ভাঙ্গন ঠেকাও শীর্ষক তিস্তা কনভেনশন কাজীর কান্ড! কাবিননামা নিতে ৩০ হাজার টাকা দাবি

বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া মেয়ের কবরের পাশে ৬ দিন ধরেই বাবার কান্না

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১
  • ১০৪ বার দেখা হয়েছে
ছবি: সংগৃহীত

রংপুর প্রতিনিধি ।। মেয়েকে নিয়ে অনেক স্বপ্ন ছিল তার। উচ্চ মাধ্যমিক পাস করার পর দেশের নামকরা কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানোর ইচ্ছা ছিল। কিন্তু সব স্বপ্ন ধূলিস্যাৎ হয়ে গেল। এইচএসসি পরীক্ষার্থী মেয়েকে নিয়ে আনন্দে দিন কাটানোর কথা থাকলেও এখন শোকে দিন কাটছে বাবার। মেয়ের কবরের পাশেই দিনের বেশির ভাগ সময় কাটছে এ হতভাগার।

বলছি রংপুর নগরীর দক্ষিণ কুকরুল এলাকায় ধর্ষণের পর হত্যার শিকার হওয়া কলেজছাত্রীর বাবার কথা। যিনি মেয়ের শোকে অনেকটা পাথরের মতো হয়ে গেছেন। শুধু বাবাই নয়, কলেজছাত্রীর মা-ও এখন পাগলপ্রায়।

এদিকে, দাফনের ১৬ দিন পর কবর খুঁড়ে ওই কলেজছাত্রীর লাশ তোলা হয়। বুধবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মালিহা খানমের উপস্থিতিতে নগরীর মুনশিপাড়া কবরস্থান থেকে লাশটি তুলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে নেয় পুলিশ।

নিহতের মা জানান, ৬ জুন দুপুরে তার মেয়েকে বাড়ি থেকে ডেকে নেন বান্ধবী আইভি। এরপর আর বাড়ি না ফেরায় বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করা হয়। পরদিন বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত একটি পুকুর থেকে মেয়েটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পানিতে ডুবে মারা গেছে মনে করে ওই দিনই তাকে মুনশিপাড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়।

তিনি আরো জানান, তার মেয়ের শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন ছিল। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

ওই কলেজছাত্রীকে দাফনের পর স্বজনরা জানতে পারেন, ঘটনার দিন বান্ধবী আইভিকে দিয়ে বাড়ি থেকে তরুণীকে ডেকে নেন প্রতিবেশী মুন্না ও তার বন্ধু আল আমিন। এরপর নির্জন স্থানে নিয়ে তাকে ধর্ষণের পর হত্যা করেন তারা। পরে রাতে লাশ পুকুরে ফেলে দেন।

এ ঘটনায় ১৬ জুন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন নিহতের মা। এরপর পরশুরাম থানাকে মামলা করে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেয় আদালত। পরে ওই রাতেই আইভি, মুন্না ও আল আমিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পরশুরাম থানার ওসি আবু মুসা জানান, দাফনের ১৬ দিন পর ওই কলেজছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102