শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৬:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মই দিয়ে ৫ কোটি টাকায় সেতুতে উঠছেন স্থানীয়রা! ইলিয়াস মোল্লা’কেই পুনরায় চেয়ারম্যান হিসেবে চায় লাউকাঠী ইউনিয়নবাসী শিক্ষার্থীদের ধাওয়া খেয়ে ভোঁ-দৌড় দিলেন সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা! লালমনিরহাটে পানির নিচে কৃষকের স্বপ্নের ধান! হাতীবান্ধায় ন্যাশনাল ব্যাংকের করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ভুট্টাক্ষেতে মিলল স্কুলছাত্রীর মরদেহ তিস্তা বাঁচাও ভাঙ্গন ঠেকাও শীর্ষক তিস্তা কনভেনশন কাজীর কান্ড! কাবিননামা নিতে ৩০ হাজার টাকা দাবি মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে দুই পুলিশ কর্মকর্তা আহত! লালমনিরহাটে বিএনপির বাইসাইকেল র‍্যালিতে মির্জা ফখরুল

বাবার লাশের পাশে কাঁদতে কাঁদতে না ফেরার দেশে চলে গেলেন ছেলেও

বাংলার সংবাদ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৩ আগস্ট, ২০২১
  • ৬০ বার দেখা হয়েছে

হবিগঞ্জে মাত্র ৫ ঘণ্টার ব্যবধানে বাবা ছেলের মৃত্যু হয়েছে। বাবার লাশের পাশে বসে কাঁদতে কাঁদতেই মারা যান চিকিৎসক ছেলেও। ঘটনায় সদর উপজেলার রাজিউড়া ইউনিয়নের মথুরাপুর গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সোমবার তাদের দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। তারা হলেন ওই গ্রামের শিক্ষক গোলাম কিবরিয়া ওরফে দিলু মাস্টার (৭০) এবং তার ছেলে গ্রাম্য চিকিৎসক মো. রুবেল মিয়া (৩৫)।

বিষয়টি নিশ্চিত করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ফয়জুল ইসলাম ফজল বলেন, দিলু মাস্টার দীর্ঘদিন যাবত শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত ছিলেন। বর্তমানে তিনি অবসরে বাড়িতেই ছিলেন। তার ছেলে মো. রুবেল মিয়া গ্রাম্য চিকিৎসক হিসেবে উচাইল বাজারে একটি ওষুধের দোকান পরিচালনা করতেন।

তিনি বলেন, সোমবার দুপুর ২টায় তাদের নামাজে জানাজা শেষে দাফন করা হয়েছে।

তাদের পরিবারের বরাত দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান জানান, রোববার দিলু মাস্টার হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তাকে নিয়ে ছেলে রুবেল মিয়া সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টায় তিনি মারা যান।

রাতেই অ্যাম্বুলেন্সে করে পিতার লাশ বাড়িতে নিয়ে আসেন ছেলে রুবেল মিয়া। বাড়ি ফেরার পর অতিশোকে কান্নাকাটি করতে করতে তিনিও অজ্ঞান হয়ে যান।

দীর্ঘক্ষণ পরেও আর জ্ঞান ফিরেনি। ভোর সাড়ে ৩টার দিকে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে। ততক্ষণে ছেলে রুবেল মিয়াও চলে যান না ফেরার দেশে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102