সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১১:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
“বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষম্যের ঠাই নাই” বেতন বৈষম্য নিরসনে লালমনিরহাটে মানববন্ধন সাংবাদিক রণেশ মৈত্রের মরদেহে ডেপুটি স্পিকারের শ্রদ্ধাঞ্জলি লালমনিরহাটে ক্যাবে’র মতবিনিময় সভা লালমনিরহাটে পূজামণ্ডপ পরিদর্শনে নেপালের রাষ্ট্রদূত ঘনশ্যাম ভান্ডারী লালমনিরহাটের প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ আমবাড়ীতে শ্রমিক লীগের আয়োজনে শেখ হাসিনার জন্মদিন পালন নভেম্বরে জাপান সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে লালমনিরহাটে রক্তদান কর্মসূচী ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা তদন্তের নির্দেশ শেখ হাসিনা বহির্বিশ্বেও অন্যতম সেরা রাষ্ট্রনায়ক : রাষ্ট্রপতি

পরিত্যক্ত সামগ্রী দিয়ে পানি পরিশোধন ও বিদ্যুৎ উৎপাদনে অধ্যাপকের সাফল্য ড. তানভীর ফেরদৌস সাঈদ

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২৫৪ বার দেখা হয়েছে
ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের (ইউএপি) পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. তানভীর ফেরদৌস সাঈদ।

এই সাফল্যে লালমনিরহাটের মানুষ গর্বিত, তিনি গর্বিত পিতার গর্বিত সন্তান।
আসাদুল ইসলাম সবুজ ।। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য যে, পরিত্যক্ত নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে পানি পরিশোধন ও স্বল্প খরচে বিদ্যুৎ উৎপাদনে অধ্যাপকের সাফল্য ড. তানভীর ফেরদৌস সাঈদ। তিনি শহীদ জাতীয় নেতা এএইচএম কামারুজ্জামানের জ্যেষ্ঠ দৌহিত্র ও লালমনিরহাটের সাবেক এমপি প্রয়াত ইঞ্জিনিয়ার আবু সাঈদ দুলালের পুত্র লালমনিরহাটের গর্বিত সন্তান ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের (ইউএপি) পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. তানভীর ফেরদৌস সাঈদের পরিত্যক্ত নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে পানি পরিশোধন ও স্বল্প খরচে বিদ্যুৎ উৎপাদনে সাফল্য। বাংলাদেশসহ বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। এই সাফল্যে লালমনিরহাটের মানুষ গর্বিত। তিনি গর্বিত পিতার গর্বিত সন্তান।

ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের (ইউএপি) পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. তানভীর ফেরদৌস সাঈদের নেতৃত্বে একটি গবেষক টিম কম খরচে মাইক্রবায়াল ফুয়েল সেল কন্সট্রাক্টেড ওয়েটল্যান্ড উদ্ভাবন করেছে, যা একই সঙ্গে দূষিত পানি শোধন এবং বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে সক্ষম। কয়েক মাস ধরে গবেষণা করে এই সাফল্য পেয়েছে বে-সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক টিমটি।

জানা গেছে, বিভিন্ন অর্গানিক দ্রব্য (বায়োচার, কয়লা, পাটের আঁশ), বর্জ্য (স্ল্যাগ), নির্মাণ সামগ্রী (কংক্রিট, ইট) ও দেশীয় গাছ ফ্রাগ্মাইট আর ভেটিভার ব্যবহার করেছে গবেষক দলটি। রিসার্চ টিমটি কিভাবে দূষিত জলাশয়ের পানি পরিশোধন করে জীবাণুমুক্ত করে খাওয়ার উপযোগী করা যায়-এই নিয়ে কাজ শুরু করেছিল। পরে তারা বিদ্যুৎ উৎপাদনের বিষয়টি সংযোগ করেন। উদ্দেশ্য ছিল বিশেষ করে নির্মাণ সামগ্রীর বর্জ্য হতে কম খরচে বিদ্যুৎ উৎপাদন ও পানি শোধন করা। পৃথিবীতে প্রথম কোন বাংলাদেশী দেশের মাটিতে এমন সাফল্য পেয়েছে।

এতে করে ভবিষ্যতে কম খরচে বিদ্যুৎ উৎপাদন ও পানি পরিশোধন করে সাধারণ মানুষের কল্যাণে ও জীবনমান উন্নয়নে ব্যবহার করা যাবে। এতে করে স্বল্প মূল্যে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব ও স্বল্প মূল্যে পানি শোধন সম্ভব হবে, যা আর্থিক ভাবে সাশ্রয়ী হবে। বিশ্ববিদ্যালয়টির ওয়েবসাইট ও ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের (ইউএপি) পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. তানভীর ফেরদৌস সাঈদের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

অধ্যাপক ড. তানভীর ফেরদৌস সাঈদ জানান, মাইক্রবায়াল ফুয়েল সেল কন্সট্রাক্টেড ওয়েটল্যান্ডে একই সঙ্গে দূষিত পানি পরিশোধন বা শোধন করা যায়। একই সঙ্গে একই খরচে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব। এটাই গবেষণা করে সফল হয়েছি। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন গবেষণাগারে খুব সীমিত সংখ্যক রিসার্চ গ্রুপ এই বিষয়টি নিয়ে গবেষণা করেছিল। অনেকের ধারণা ছিল বর্জ্য দিয়ে পরিশোধন সম্ভব নয়। এই গবেষণায় কম আর্থিক ব্যয় নির্বাহ করে পানি শোধন ও বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয়েছে; যা আগামী বাংলাদেশের জন্য খুবেই প্রয়োজন ছিল। মানুষের দোরগোরায় বিশুদ্ধ পানি ও বিদ্যুত চাহিদা পৌঁছে দেয়া ছিল চ্যালেন্স। সেই চ্যালেন্স মোকাবেলায় বাংলাদেশের বিজ্ঞানীগণ সফলতা পেয়েছে। এই সফলতা বাংলাদেশের মানুষের সফলতা।

তিনি আরও জানান, এই সাফল্য নিয়ে কাজ করার গবেষণা প্রতিবেদনটি সম্প্রতি বিখ্যাত কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। এ গবেষণা পৃথিবীতে দেশের সম্মান বৃদ্ধি করবে বলে মনে করেন।

প্রধান গবেষক অধ্যাপক সাঈদ বলেন, তাদের আবিষ্কৃত এ সিস্টেম দেশের পরিবেশ দূষণ প্রতিরোধে মারাত্মক ভূমিকা রাখবে। একই সঙ্গে অল্প মূল্যে বিদ্যুৎ উৎপাদনে সক্ষম। অধ্যাপক সাঈদ এদেশের জলাশয় ও পরিবেশ দূষণ নিয়ে কাজ করছেন। তিনি গবেষণায় মৌলিক অবদানের জন্য ইউনিভার্সিটি গ্রান্টস কমিশন অব বাংলাদেশ স্বর্ণপদক ও এ্যাওয়ার্ড ২০১৩ ও ২০১৬ অর্জন করেন। তিনি বাংলাদেশ একাডেমি অব সাইন্সেসের এ্যাসোসিয়েট ফেলো।

তার পিতা মরহুম ইঞ্জিনিয়ার আবু সাঈদ দুলাল লালমনিরহাট-৩ আসনের এমপি ছিলেন। লালমনিরহাট জেলা সদরের তিস্তায় সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারের সন্তান। পিতা একজন সফল ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক নেতা ও সমাজ সেবক ছিলেন। তিনি শহীদ জাতীয় নেতা এএইচএম কামারুজ্জামানের মেয়ে ফেরদৌস মমতাজের বড় ছেলে। সে শহীদ জাতীয় নেতা কামারুজ্জামানের জ্যেষ্ঠ দৌহিত্র। এমপি পুত্রকে নিয়ে লালমনিরহাটবাসী গর্বিত। গর্বিত পিতা- মাতার (এমপি আবু সাঈদ দুলাল ও দেরদৌস মমতাজ) সন্তান। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী তাকে বাংলাদেশ যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নির্বাচিত করেছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102