মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ১০:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
লালমনিরহাটের খোড়াগাছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়নি! একেই বলে লালমনিরহাটের দেউতির হাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের প্রভুভক্তি! উমাপতি হরনারায়ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মাঞ্জুমার বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত শুরু নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে শিবরাম স্কুল এন্ড কলেজে জাতীয় শোক দিবস পালিত লালমনিরহাটে দুর্বৃত্তদের হামলায় ৫ সাংবাদিক আহত, একজন আসামি গ্রেফতার লালমনিরহাটে অটোরিক্সা চালক অপহরণ, মুক্তিপণ দাবী (ভিডিও সহ) মহাত্মাগান্ধী গোল্ডেন এ্যাওয়াড পেলেন লালমনিরহাটের তিস্তা কে. আর. খাদেম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংস্কার কাজ পানির স্রোতে হারিয়ে যাচ্ছে! লালমনিরহাট রেলওয়ে চুক্তিভিত্তিক টিএলআর, নিয়োগে লক্ষ লক্ষ হাতিয়ে নিচ্ছেন ফিরোজ হারিয়েছে…

নির্বাচনী সহিংসতায় গুলিবিদ্ধ-৩ : আহত ২০

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ৩০ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৪৮ বার দেখা হয়েছে
ছবি: সংগৃহীত

বাংলার সংবাদ ডেস্ক ।। নির্বাচনী সহিংসতায় লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ পৌরসভায় ৩ জন গুলিবিদ্ধসহ ২০ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার (৩০ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে পশ্চিম কাজিরখিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নির্বাচন চলাকালীন প্রতিদ্বন্দ্বী দুই কাউন্সিলর প্রার্থীদের কেন্দ্র দখলকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ সময় পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ও লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিকে, কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের ইট পাটকেলের আঘাতে ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

ঘটনার পর আহতদের উদ্ধার করে রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। পরে পুলিশের ডিআইজির নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক বিডিআর, র‌্যাব ও পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনার সময় আধা ঘণ্টা ভোটগ্রহণ স্থগিত থাকলেও থমথমে পরিস্থিতির মধ্যে পুনরায় ভোট গ্রহণ শুরু হয়।

স্থানীয়রা জানায়, পৌর ৬নং ওয়ার্ডের উটপাখি প্রতীকের কাউন্সিলর প্রার্থী আনোয়ার হোসেন তার দলবল নিয়ে পশ্চিম কাজিরখিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখল করতে এসে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী পাঞ্জাবি প্রতীকের প্রার্থী মামুনুর রশিদ আকন্দের সমর্থকদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এক পর্যায়ে আনোয়ারের অনুসারীরা এলোপাতাড়ি গুলি, ককটেল বিস্ফোরণ ও মারধর শুরু করে। এতে আলমগীর, কামাল হোসেন ও জামসেদসহ ৩ জন তাদের ছোড়া ছররাগুলিতে আহত হন। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের আহত হয় আরও ১৫ জন।

পরে খবর পেয়ে পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক বিডিআর, র‌্যাব ও পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ফাঁকাগুলি ও এলোপাতাড়ি লাঠিচার্জ করে হামলাকারীদের ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। তবে কেন্দ্রের কোনো কিছু খোয়া যায়নি বলে দাবি সংশ্লিষ্টদের।

এ বিষয়ে লক্ষীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. রিয়াজুল কবির বলেন, দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের খবর পেয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করে। এ সময় পুলিশ ফাঁকা গুলি ও লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় ইট পাটকেলে আঘাতে ৫ পুলিশ সদস্য সামান্য আহত হন বলে জানান তিনি। তবে পুলিশ কত রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়েছেন তা হিসাব না করে বলা যাচ্ছে না বলেও জানান তিনি। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান রিয়াজুল কবির।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102