মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ১০:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
লালমনিরহাটের খোড়াগাছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়নি! একেই বলে লালমনিরহাটের দেউতির হাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের প্রভুভক্তি! উমাপতি হরনারায়ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মাঞ্জুমার বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত শুরু নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে শিবরাম স্কুল এন্ড কলেজে জাতীয় শোক দিবস পালিত লালমনিরহাটে দুর্বৃত্তদের হামলায় ৫ সাংবাদিক আহত, একজন আসামি গ্রেফতার লালমনিরহাটে অটোরিক্সা চালক অপহরণ, মুক্তিপণ দাবী (ভিডিও সহ) মহাত্মাগান্ধী গোল্ডেন এ্যাওয়াড পেলেন লালমনিরহাটের তিস্তা কে. আর. খাদেম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংস্কার কাজ পানির স্রোতে হারিয়ে যাচ্ছে! লালমনিরহাট রেলওয়ে চুক্তিভিত্তিক টিএলআর, নিয়োগে লক্ষ লক্ষ হাতিয়ে নিচ্ছেন ফিরোজ হারিয়েছে…

এক ডাঃ তৌফিকের কারণে পুরো আদিতমারীবাসী চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত

স্টাফ রিপোর্টার।।
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৫ জুলাই, ২০২২
  • ৪২ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একজন স্ব-জাতিয় ডাক্তারতৌফিকের অত্যাচারের কারনেই কোন ডাক্তারই চাকুরী করতে চান না লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। এ কারনেই দির্ঘদিন থেকে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে গোটা আদিতমারী উপজেলাবাসাী। আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ তৌফিক আহমেদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।

ডাঃ তৌফিক আহমেদের সীমাহীন দূর্নীতির কারনে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী, রোগীর আত্মীয়-স্বজন, স্থানীয় সচেতন মহলসহ প্রায় শতাধিক সাধারণ মানুষের গণ সাক্ষরিত একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে।

২১ জুলাই বিকালে লালমনিরহাট সিভিল সার্জন (সিএস) ডাঃ নির্মলেন্দু রায় গণ পিটিশনসহ একটি অভিযোগ পাওয়ার কথাও নিশ্চিত করে বলেন, খুব তারাতারি একটি তদন্ত টিম গঠন করে বিষয়টি তদন্ত করা তদন্ত রিপোর্ট স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে প্রেরন করা হবে। এর আগে গত রবিবার (১৭ জুলাই) চিকিৎসা নিতে আসা রোগী, রোগীর আত্মীয়-স্বজন, স্থানীয় সচেতন মহলসহ প্রায় শতাধিক সাধারণ মানুষের গণ সাক্ষরিত একটি লিখিত অভিযোগ দেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে।

লিখিত অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,জেলার আদিতমারী উপজেলা’র স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা তৌফিক আহমেদ, কোড নং-১৩৩৩১২। কর্মহীন দুর্নীতি ও কর্মচারীদের সাথে দুর্ব্যবহার গালাগালি ও অসৌজন্যমূলক আচরণ এমন এক পর্যায় এসে দাড়িয়েছে যে, যেকোন সময় আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিশৃঙ্খলার সৃস্টি হতে পারে। তার দূর্নীতি এবং অশোভন আচরণের কারণে ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোন ডাক্তারই থাকতে চান না। চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে গোটা আদিতমারী উপজেলাবসাী।

এ কারনেই এলাকাবাসী, সাধারন জনগন ও চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।এছাড়াও নিয়মানুযায়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর অফিস শনিবার হতে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত খোলা থাকলেও তা মানেন না এই কর্মকর্তা। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই প্রতি শনিবার অফিস বন্ধ রাখেন বলেও অভিযোগ তার বিরুদ্ধে।
সূত্রমতে, সিবিএইচসি হতে ২০২১-২০২২ অর্থ বছরে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য ৭ লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা পিট নির্মাণের জন্য বরাদ্দ প্রদান করে স্থানীয় কোটেশনের মাধ্যমে নির্মাণের আদেশ প্রদান করেন। তবে আদেশ না মেনে তিনি বিনা কোটেশনে তার বন্ধু রংপুর গংগাচড়ার মাধ্যমে নামমাত্র কোটেশনে পিট নির্মাণের কাজ করেন এবং কাজ শেষ হওয়ার পূর্বেই টাকা উত্তোলন করে ভাগ বাটোয়ারা করে নিয়ে নেন। যেটি তদন্ত করলে সত্যতা পাওয়া যাবে বলে দাবি অভিযোগকারীদের।

এছাড়া করোনা টিকা প্রদানে টিকাদান কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবী কর্মীদের ভাতায় কোন ধরনের ভ্যাট ট্যাক্স না থাকলেও তিনি ১৫% টাকা কর্তন করে আত্মসাত, ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল সপ্তাহে ভ্যাট ট্যাক্সের কথা বলে ১৫% টাকা কর্তন করে আত্মসাত,জাতীর পুষ্টি সপ্তাহের সরকারের একটি নির্দিষ্ট সময় দিয়ে সারা বাংলাদেশে তা একযোগে পালন করার নির্দেশ থাকলেও নামমাত্র রেজুলেশন করে পুষ্টি সপ্তাহের অর্থ উত্তোলন করে সাত দিনের কার্যক্রম একদিনে শেষ করণ, যানবাহন গ্যারেজ নির্মানের কথা বলে, আদিতমারী হাসপাতালের ৩০টি মেহগনী পাছ বন বিভাগের অনুমতি ব্যতিরেকে কর্তনসহ নানা অনিয়মের কথা অভিযোগে উল্লেখ করেন অভিযোগকারীরা।তাছাড়া তার জন্য বরাদ্দ সরকারি গাড়িটি ব্যবহার করে ব্যক্তিগত কাজ,ভ্রমণ ও আত্মীয়-স্বজনের কাজে ব্যবহারসহ মেরামত করার নাম করে অর্থ আত্মসাত করার অভিযোগ করছে তারা।

লিখিত অভিযোগে সাক্ষরকারী হোসাইন মোঃ নদিমুল আলম, আশরাফুল,মোঃ মাহফুজার, আলামিন মুন্না, ইব্রাহিম মিয়া,আব্দুস সামাদ,এবিএম রেজাউল করিম, লাভলু মিয়া,হাবিবুর রহমান, আবুল কালাম, মোফাজ্জল হোসেন, আবু সাঈদ নয়ন,সাইদুল হক এবং সেবা প্রত্যাশী রোগী,রোগীর আত্মীয়-স্বজনসহ শতাধিক সাধারন মানুষের দাবি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হাসপাতালের উন্নয়নের কথা বলে উল্লেখিত অভিযোগহ নানাভাবে দূর্নীতি করছে। তাই বিষয়গুলোর সুষ্ঠু তদন্ত করা হোক।

আদিতমারী স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ তৌফিক আহমেদের নিকট জানতে চাওয়া হলে কোনো মন্তব্য করতে পারবো না বলে সাফ জানিয়ে দেন। তাছাড়া এ ধরনের গণ পিটিশনের কপি আমি পাইনি।

এ বিষয়ে লালমনিরহাটের সিভিল সার্জন, ডাঃ নির্মলেন্দু জানান,ডাঃ তৌফিক আহমেদের বিরুদ্ধে গণ পিটিশনসহ একটি অভিযোগের কপি পেয়েছি। খুব তারাতারি তদন্ত টিম গঠন করে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102