বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:৪৬ পূর্বাহ্ন

উমাপতি হরনারায়ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মাঞ্জুমার বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত শুরু

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৫ আগস্ট, ২০২২
  • ১০৫ বার দেখা হয়েছে

আসাদুল ইসলাম সবুজ, লালমনিরহাট ॥ লালমনিরহাটের উমাপতি হরনারায়ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকার মাঞ্জুমা আক্তারের বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ উঠেছে। বিদ্যালয়ে অফিস কক্ষে নেই বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে অবমুল্যায়ণ সহ ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা মাঞ্জুমা আক্তার ও সহকারী শিক্ষক খায়রুল ইসলাম সবুজের অবৈধ পন্থায় সার্টিফিকেট জালিয়াতি অভিযোগ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী, সচিব এবং জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সহ বিভিন্ন দপ্তরে ২দফা লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই বিদ্যালয়ের সভাপতি মাসুদ রানা পারভেজ। যা ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে জেলা শিক্ষা বিভাগ।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের উমাপতি হানারায়ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্টিতলগ্ন থেকে বেশ সুনামে সাথে চলছিল। কিন্তু ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা হিসেবে মাঞ্জুমা আক্তার যোগদানের পর থেকে বিদ্যালয়টিতে রাহুলগ্রাসী অনিয়ম ও দুর্নীতি শুরু হয়েছে। তিনি একই বিদ্যালয়ে একটানা ১১ বছর ধরে কর্মরত আছেন। উক্ত মাঞ্জুমা আক্তারের পিতা তায়েব আলী। তিনি পাটগ্রাম উপজেলার জামায়াতের প্রভাবশালী নেতা এবং তার স্বামী রফিকুল ইসলাম পাটোয়ারী (যুবরাজ) পঞ্চগ্রাম ইউনিয়ন বিএনপির প্রভাবশালী নেতা হওয়ায় বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি লাগাননি।

এমনকি বিদ্যালয়ের উন্নয়নমূলক কাজের অর্থ লোপাট, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাসুদ রানা পারভেজকে অবমুল্যায়ণ, নিয়ম বর্হিভূত ভাবে বিদ্যালয় পরিত্যাগ, স্থানীয় ক্ষমতার দাপট, সহকারী শিক্ষকদের সাথে খারাপ আচারণ, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকার প্রতিষ্ঠানে একক আধিপত্য বিস্তারের ফলে ভেঙ্গে পড়েছে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষা ব্যবস্থা। তাছাড়াও ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকার মাঞ্জুমা আক্তার সহ ওই বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক খায়রুল ইসলাম সবুজের সার্টিফিকেট জালিয়াতি অভিযোগ উঠেছে। যা ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু হয়েছে।

উক্ত বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাসুদ রানা পারভেজ বলেন, বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা মাঞ্জুমা আক্তার বরাবরেই সভাপতিকে অবমুল্যায়ণ করেন। তার বাবা জামায়াতের নেতা ও স্বামী বিএনপির নেতা হওয়ার সুবাদে বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিদ্যালয়ে অফিস কক্ষে লাগান না। তাদের ছবি অফিস কক্ষে লাগানোর তাগাদা দিলে সভাপতিকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা হুমকি দেন এবং শিক্ষিকা বলেন, আমি বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনাকে মানি না। বেশি বারাবাড়ি করলে, আমি মহিলা, তোমার নামে মানহানী মামলা করে জেলে ভরে রাখবো।

ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক খায়রুল ইসলাম সবুজের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।

এ বিষয়ে উমাপতি হরনারায়ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকার মাঞ্জুমা আক্তার বলেন, আমি ২০১১ সালে থেকে একই বিদ্যালয়ে একটানা ১১ বছর ধওে সুনামের সাথে কর্মরত রয়েছি। আমার বাবা জামায়াতের কোন দল করেন না, তিনি একজন চাকরিজীবী। আমার বিরুদ্ধে জাল সার্টিফিকেট সহ যেসব অভিযোগ করা হয়েছে তা মিথ্যা। কর্তৃপক্ষ তদন্ত শুরু করেছে, যা তদন্ত শেষে সত্য মিথ্যার প্রমান পাওয়া যাবে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম নবী বলেন, ওই বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে ২টি অভিযোগ পেয়েছি। ইতিমধ্যে অভিযোগগুলো তদন্তে নির্দেশ দিয়েছি। তদন্ত রিপোর্ট পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102