মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০১:১৮ অপরাহ্ন

ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীকে মারধর ও স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়ার অভিযোগ

নতুন বাংলার সংবাদ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১
  • ৪০ বার দেখা হয়েছে
ছবি: সংগৃহীত

স্টাফ রিপোর্টার ।। জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এক ব্যবসায়ীকে ধরে নিয়ে গিয়ে মারধরসহ স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই ব্যবসায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানায় পৃথক দুটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ওই উপজেলার ফকিরপাড়া ইউনিয়নের দালালপাড়া প্রামের তরিমুদ্দিনের পূত্র এমদাদুল হকের স্থারীয় বড়খাতা নামক বাজারে একটি যন্ত্রাংশের দোকান রয়েছে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে তার দোকানের পাশ থেকে ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা জামাল সোহেলের নির্দেশে গ্রাম পুলিশ এমদাদুল হককে ধরে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যায়। পরে চেয়ারম্যান ও গ্রাম পুলিশ তাকে মার ডাং করে ১০টি স্ট্যাম্প স্বাক্ষর নেয়। এসময় ওই বড়খাতা বাজারে ব্যবসা করতে দিবে না বলেও প্রকাশ্যে হুমকি দেয়। খবর পেয়ে স্থানীয় কয়েকজন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।

এ ঘটনায় এমদাদুল হক বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার রাতেই হাতীবান্ধা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল আমিন ও থানায় দুটি পৃথক অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ বিষয়ে বড়খাতা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা জামাল সোহেল বলেন, এমদাদুল হকের বাড়ি আমার পার্শ্ববর্তী ফকিরপাড়া ইউনিয়নে। ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অসুস্থ হওয়ায় এমদাদুলের জমিজমা নিয়ে একটি বিবাদের মিমাংশা করে দিয়েছি মাত্র। মারধর এবং জোর পূর্বক স্বাক্ষর নেয়ার অভিযোগ মিথ্যা।

হাতীবান্ধা থানার ওসি এরশাদুল আলম জানান, বড়খাতা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও গ্রাম পুলিশের বিরুদ্ধে এক ব্যবসায়ীকে মারধরের একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল আমিন বলেন, বিষয়টি লোকমুখে শুনেছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102