শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৭:২০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মই দিয়ে ৫ কোটি টাকায় সেতুতে উঠছেন স্থানীয়রা! ইলিয়াস মোল্লা’কেই পুনরায় চেয়ারম্যান হিসেবে চায় লাউকাঠী ইউনিয়নবাসী শিক্ষার্থীদের ধাওয়া খেয়ে ভোঁ-দৌড় দিলেন সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা! লালমনিরহাটে পানির নিচে কৃষকের স্বপ্নের ধান! হাতীবান্ধায় ন্যাশনাল ব্যাংকের করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ভুট্টাক্ষেতে মিলল স্কুলছাত্রীর মরদেহ তিস্তা বাঁচাও ভাঙ্গন ঠেকাও শীর্ষক তিস্তা কনভেনশন কাজীর কান্ড! কাবিননামা নিতে ৩০ হাজার টাকা দাবি মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে দুই পুলিশ কর্মকর্তা আহত! লালমনিরহাটে বিএনপির বাইসাইকেল র‍্যালিতে মির্জা ফখরুল

আমরা দুই বোনই গোল্ডেন জিপিএ পেয়েছি!

বাংলার সংবাদ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২২
  • ১৪১ বার দেখা হয়েছে

বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহারে এসএসসি পরীক্ষায় যমজ বোন সাবরিনা মমতাজ তানিয়া ও সাদিয়া মমতাজ তমা গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছেন। দুজনই বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পড়াশোনা করেছেন।

ফল প্রকাশের পর শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) দুপুরে তারা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তানিয়া ও তমা উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরের নতুন বাজার (হাটখোলা) এলাকার এএফএম মমতাজুর রহমানের মেয়ে। তাদের বাবা-মা দুজনই শিক্ষক।

তানিয়া ও তমা পঞ্চম শ্রেণিতে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি ও জেএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছিল। এবার এসএসসিতেও একই সঙ্গে সান্তাহার হার্ভে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পাওয়ায় ভীষণ খুশি তারা। খুশি তাদের পরিবারও।

সাবরিনা মমতাজ তানিয়া বলেন, আলহামদুলিল্লাহ আমরা দুই বোনই গোল্ডেন জিপিএ পেয়েছি। এজন্য আমরা দুজন খুবই খুশি। একই স্কুল থেকে একই সময়ে গোল্ডেন জিপিএ নিয়ে বের হয়েছি, এটা অনেক মজার একটা বিষয়।

সাদিয়া মমতাজ তমা বলেন, এই রেজাল্ট পেতে আমাদের বাবা-মা, ভাই এবং গৃহ শিক্ষকদের অনেক সহযোগিতা আছে। সবার প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। বিশেষ করে আমার মা-বাবার অনেক অবদান আছে। ফলাফল পাওয়ার পর থেকে খুবই ভালো লাগছে।

ধামকুড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ও যমজ দুই বোনের মা হাসনা বানু বলেন, আমি ও আমার স্বামী চাকরি করায় তাদের সময় দিতে পারিনি। এরপরও স্কুল থেকে এসে চেষ্টা করেছি। ওরা নিজেরাই পড়াশোনার বিষয়ে খুব আগ্রহী ছিল। কখনোই তাদের দুজনকে পড়তে বসার জন্য বলতে হয়নি। ওদের আগ্রহের জন্য আমাদের প্রত্যাশা ছিল ওরা ভালো রেজাল্ট করবে। তারা তা-ই করেছে।

খুব ভালো লাগার বিষয় হলো, ওরা একবোন আরকে বোনকে খুবই সহযোগিতা করে। তবে ওদের ভেতরে লেখাপড়া ছাড়া অন্য কোনো বিষয়ে কখনো প্রতিযোগিতা দেখিনি। তারা দুজনই ডাক্তার হতে চায়।

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2017 notun-bdsangbad
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102